ওয়ানপ্লাস প্রতিবছর নিয়ম করে একই সময়ে তাদের উচ্চ মানের স্মার্টফোনগুলির আপডেট প্রকাশ করছে তা কিন্তু নয়। কেননা গত ২০১৪ সালের এপ্রিলে ওয়ানের ঘোষণা এসেছিল, জুলাই ২০১৫ তে এসেছে টু এর ঘোষণা। তাই ওয়ানপ্লাস ৩ এর ঘোষণাও আসবে সেটা সকলেই বুঝতে পারেন। তবে এ মূহুর্তের গুজব বলছে আমরা ঘোষণাটি পাবো এই মাসের শেষভাগে।

আগ্রহী গ্রাহক উইবো’তে এই ওয়ানপ্লাস ৩ এর ছবি দেখার সুযোগ পেয়েছেন। ফোনটির উপরিভাগ দেখতে প্রচলিত ফোনেরই মতো, তবে হতে পারে তাতে যোগ করা হয়েছে এমন কিছু যা স্পর্শকে অন্য সুখানুভূতি দিবে বা দেবে অন্য কিছু।

ফোনটির ক্যামেরা বসানো হয়েছে একেবারে নতুন ভাবে। এর সাথে আগের কোন ফোনের অভিজ্ঞতার তুলনা করা যাবে না। একই ভাবে তা করা হয়েছে এর অ্যান্টেনা ব্যান্ডের ক্ষেত্রেও। এইচটিসি ওয়ান এর অনেকগুলি হ্যান্ডসেট ও সম্প্রতি ফাঁস হওয়া স্যামসাং গ্যালাক্সি সি৫ এর ডিজাইনে অনেক সাদৃশ্য আছে। তবে নতুন করে দেখতে পাওয়া এই ফোনের ছবি থেকে এটা স্পষ্ট যে, ডিভাইসটি সত্যিই একটি ওয়ানপ্লাস মডেলের ফোন। অর্থাৎ এই ফোনের পাওয়ার বাটন ও ভলিউম রকার একটি তৃতীয় অংশ দিয়ে নিয়ন্ত্রিত হয় যাকে আমরা ওয়ানপ্লাস ২ এর সাথে তুলনা করতে পারি।

এর সামনের অংশে যুক্ত হয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার, যা আছে ফোনের উপরের প্রান্তের একেবারে কাছ ঘেঁষে। একটি ছবিতে দেখা গেছে ফোনটির প্রান্তগুলি কিঞ্চিত বাঁকানো।

গুজবে এর বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে যা বলছে তা হলো এতে আছে একটি ৫ ইঞ্চি আকারের ফুলএইচডি ডিসপ্লে। ধারণা করা হচ্ছে আমরা কিছুদিন পরেই এই ফোনের একটি বড় সংস্করণ ওয়ানপ্লাস ৩ প্লাস পেতে যাচ্ছি। বলা হচ্ছে ফোনটিতে শক্তি সঞ্চার করবে কোয়ালকমের স্ন্যাপড্রাগন ৮২০ চিপসেট। এতে থাকবে ৪ অথবা ৬ গিগাবাইট র‌্যাম। এ ক্ষেত্রে ক্রেতা তার চাহিদা অনুযায়ী র‌্যাম পছন্দ করে নেয়ার সুযোগ পাবেন। আর দামের বিষয়ে জানা গেছে যে, ওয়ানপ্লাস ৩ এর মূল্য হবে ৩০০ ডলারের বেশি। তবে খবরের সম্পূর্ণ সত্যতা জানতে আমাদেরকে এর আনুষ্ঠানিক ঘোষণার জন্যে অপেক্ষা করতে হবে। সূত্রঃ উইবো।

LEAVE A REPLY